x

ইউরোপের নিরাপত্তা সংস্থা ইউরোপোল বলছে, গত শুক্রবার সারা পৃথিবীতে হ্যাকাররা যে সাইবার আক্রমণ চালিয়েছে, তাতে ১৫০টি দেশের ২ লক্ষ কম্পিউটার আক্রান্ত হয়েছেইউরোপোলের প্রধান রব ওয়েইনরাইট বলেছেন, যে মাত্রায় এই সাইবার আক্রমণ হয়েছে তা আগে কখনো ঘটেনি
ব্রিটেনের আইটিভিতে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, বিশ্ব এক ক্রমবর্ধমান হুমকির সম্মুখীন, এবং সোমবার অফিস-আদালত খোলার পর আক্রমণের সংখ্যা আরো বাড়তে পারেযে দেশগুলো সবচেয়ে বেশি আক্রমণের শিকার হয়েছে তার মধ্যে যুক্তরাজ্য এবং রাশিয়া রয়েছে
নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, আরো আক্রমণ হতে পারে, এবং সেগুলো হয়তো ঠেকানো সম্ভব হবে না
মি. ওয়েইনরাইট বলেন, হ্যাকাররা বড় বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও কর্পোরেশনগুলোকে ম্যালওয়্যার দিয়ে টার্গেট করেছেআক্রান্ত কম্পিউটারে ব্যবহারকারীরা কোন ফাইল খুলতে পারছেন না, এবং সেগুলো আটকে দিয়ে কমপিউটারের পর্দায় একটি বার্তার মাধ্যমে ‘মুক্তিপণ’ হিসেবে টাকা দাবি করা হচ্ছে
মি. ওয়েইনরাইট বলেন, এই র্যানসমওয়্যারটি নতুন ধরণের, কারণ এটা একটা ভাইরাসের সাথে সমন্বিতভাবে কাজ করছে – যার ফলে একটি কম্পিউটার সংক্রমিত হলে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে পুরো সিস্টেমে ছড়িয়ে পড়ছে
বিবিসির বিশ্লেষকরা জানাচ্ছেন, এই হ্যাকিং-এর সাথে সংশ্লিষ্ট বিটকয়েন একাউন্টগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে, হ্যাকাররা শতাধিক ক্ষেত্রে অর্থ আদায় করে নিয়েছে এবং তার পরিমাণ প্রায় ৩০ হাজার ডলার হবে
মি. ওয়েইনরাইট বলেন, আক্রমণের ব্যাপকতার সঙ্গে তুলনা করলে বলতে হবে এই অর্থের পরিমাণ ‘অনেক কম’
সূত্র- বিবিসি বাংলা