x

আশা করি আপনার সবাই আল্লাহর রহমতে
ভালো আছেন। আমিও আল্লাহর রহমতে
ভালো আছি। আর ভালো আছি বলেই চলে
আসলাম আপনাদের মাঝে। আমার লেখাগুলো
একটু ভালো মানের করার জন্য চেষ্ঠা করে
যাচ্ছি। তাই আপনাদের কোন সাজেশন
আমার কাম্য রইলো। এবার আসল কখায় চলে
আসি।
যারা মূলত ব্লগিং করেন তারা অ্যাডসেন্স
সম্পর্কে জানেন। তবে যারা এই বিষয়টি
জানেন না তাদের জন্য এই লেখা।
অ্যাডসেন্স হলো সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট
গুগল পরিচালিত একটি ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন।
এটি মূলত একটি লাভ-অংশিদারী প্রকল্প
যার মাধ্যমে ব্যবহারকারী তার ওয়েবসাইটে
ব্যবহৃত বিজ্ঞাপনের বিষয়বস্তু থেকে অর্থ
উপার্জন করতে পারেন।একটি ওয়েবসাইটের
মালিক কিছু শর্তসাপেক্ষে তার সাইটে গুগল
নির্ধারিত বিজ্ঞাপণ প্রদর্শন করতে পারেন
এবং তা থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।
বর্তমান অনলাইন বিশ্বে এই বিষয়টি ব্যপক
সাড়া জাগিয়েছে। বাংলাদেশে
ফ্রিল্যান্সিং বা অনলাইনে আয়ের বিভিন্ন
কাজের মাধ্যমে যে পরিমান আয় আসে তার
প্রায় ১২ শতাংশ আসে অ্যাডসেন্স থেকে।
এক্ষেত্রে মূলত বিভিন্ন ব্লগ সাইটে গুগলের
অ্যাডসেন্স বসিয়ে এ পরিমান আয় করেন
বাংলাদেশি অ্যাডসেন্স পাবলিশাররা।
২০০৩ সালের ১৮ জুন সর্বপ্রথম গুগল
অ্যাডসেন্স প্রকাশ করে।
স্কিন শর্ট নিচে দেও হল ঃ
২০১০ সালের Q1তে, গুগল $২.০৪ বিলিয়ন
মার্কিন ডলার আয় করেছিল ($৮.১৬ বিলিয়ন
বার্ষিক), অথবা অ্যাডসেন্সের মধ্য দিয়ে
মোট রাজস্ব ৩০% আয় করেছিল।অ্যাডসেন্স
গুগলের বিজ্ঞাপন প্রচার প্রোগ্রাম। এ
প্রোগ্রামের মাধ্যমে গুগল তৃতীয় পরে
বিভিন্ন বিজ্ঞাপন ওয়েবমাস্টার এবং
ব্লগের মালিকদের নিকট বন্টন করে।
ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স বিজ্ঞাপন
প্রদর্শনের মাধ্যমে ওয়েবমাস্টাররা অর্থ
উপার্জন করতে পারে। বিজ্ঞাপণদাতাদের
নিকট থেকে প্রাপ্ত অর্থের ৬০ থেকে ৭০
শতাংশ ওয়েবমাস্টরদের মাধ্যমে বিতরণ
করে গুগল। গুগল অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে
যেকেউ অর্থ আয় করতে পারে। প্রচুর
বাংলাদেশী ব্লগার এবং ওয়েবসাইটের
মালিক গুগল অ্যডসেন্সের বিজ্ঞাপণ
প্রদর্শণের মাধ্যমে বর্তমানে অর্থ আয়
করছেন।